39 thousand private teachers appointment notice

The notification for appointing 39 thousand teachers across the country will be published in November. The Private Teacher Registration and Certification Authority (NTRCA) will recommend this for the recruitment of selected candidates for appointment to the private education institute.

According to the sources, about 39 thousand teachers are facing crisis in the private education institute. This situation has created a situation in which there has been no recruitment of teachers for the last two years due to various complications.

The verdict of 14th teacher registration has been completed recently. NTCA’s newly-outgoing chairman, Azhar Hossain, said the final results were announced at the end of this month.

According to NTTRA sources, NTRCA has instructed to send list of vacant seats from all the schools, colleges, madrasa and technical education institutions across the country to appoint teachers in private educational institutions. In the first phase, the time for the second phase was extended without getting the list of all the vacant posts. The last period of sending the merit list was completed on September 30 in the second phase.

The concerned officials said that a list of 38,800 teachers has been sent to different subjects from private educational institutions across the country. The list has been collected through Teletalk mobile. The list of vacant seats will now be scrutinized by concerned upazila education officers. Then the list will be finalized. After finalizing the list, the NTRC will publish a public announcement request for registered applicants. Then, according to merit, the private education institute will recommend recruitment to the recruiter.

According to the information, after passing the registration examination of the NTRCA, variously registered candidates filed 35 cases on different occasions without getting the appointment. On the basis of which the directive was issued to the list of registered candidates from the court. Accordingly, NTRC publishes the list of candidates who have passed the 13th Teacher’s Registration Examination from the first. The list of 6 lakh 4 thousand 685 people is published in the list. Many of them are working in different private educational institutions.

Meanwhile, on September 5, a recommendation was sent to the private and secondary education department of the Ministry of Education of the Ministry of Education to bring some changes in the recruitment of teachers in the private education institute.

It is recommended that according to the law, at least 40 percent of the teacher’s posts approved in the private educational institution (school and college, college, madrasa) in the city or municipal area of ​​the district headquarters will be appointed and 20 percent posts for other areas will be appointed by the female teachers. In reality, due to different rates in the same upazila, in many cases it becomes difficult and incorrect to calculate the correct account. So all the educational institutions of the country have proposed to introduce women quota at the same rate. It can be said that there can be 20 to 30 percent.

In addition to recruiting athletics teachers, recruitment of male and female students in the educational institutions of the women are being appointed. Educational institutions have been objecting to the issue. So, NTRCA recommends recruitment of female teachers in the organization of male and female students in the organization of bodybuilding exercises.

Javed Ahmed Jago, Additional Secretary of the Secondary and Higher Education Department of the Ministry of Education (NGO), said to the news that the recommendations sent by the NTRC will make some changes in the appointment. The decision will be taken quickly by meeting on this issue.

He said that 35 years age limit has been set for recruitment of teachers. More than this, registered person can not apply for recruitment. The district-based recruitment process will be canceled and the nationally recruitment process will be conducted. As a result, the candidates of one district can apply for appointment to another district. And for the recruitment of all quota, it has been suggested that only 30% of the quota for appointment of female teacher will be maintained.

Along with this, changes in the recruitment of physiotherapy teachers can be changed.

সারাদেশে ৩৯ হাজার শিক্ষক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে নভেম্বরে। বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ দিতে বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন ও প্রত্যয়ন কর্তৃপক্ষ (এনটিআরসিএ) নির্বাচিত প্রার্থীদের নিয়োগের জন্য এ সুপারিশ করবে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, বেসরকরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সারাদেশে প্রায় ৩৯ হাজার শিক্ষক সঙ্কট রয়েছে। মামলাসহ নানা জটিলতায় গত ২ বছর ধরে শিক্ষক নিয়োগ না হওয়ায় এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে।

সম্প্রতি ১৪তম শিক্ষক নিবন্ধনের মৌখিক পরীক্ষা শেষ হয়েছে। চলতি মাসের শেষের দিকে চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানিয়েছেন এনটিআরসিএ’র সদ্য বিদায়ী চেয়ারম্যান আজাহার হোসেন।

এনটিআরসিএ সূত্রে জানা গেছে, বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগে সারাদেশের সব স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে শূন্য আসনের তালিকা পাঠাতে নির্দেশনা দেয় এনটিআরসিএ। প্রথম দফায় সব শূন্য পদের তালিকা না পাওয়ায় দ্বিতীয় দফায় সময় বাড়ানো হয়। গত ৩০ সেপ্টেম্বর দ্বিতীয় দফায় মেধা তালিকা পাঠানোর সময় শেষ হয়।

সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, সারাদেশে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে বিভিন্ন বিষয়ে মোট ৩৮ হাজার ৮০০ জন শিক্ষকের তালিকা পাঠানো হয়েছে। টেলিটক মোবাইলের মাধ্যমে এ তালিকা সংগ্রহ করা হয়েছে। বর্তমানে শূন্য আসনের তালিকা সংশ্লিষ্ট উপজেলা শিক্ষা কমকর্তাদের মাধ্যমে যাচাই-বাছাই করা হবে। এরপর সেই তালিকা চূড়ান্ত করা হবে। তালিকা চূড়ান্ত করার পর নিবন্ধিত প্রার্থীদের আবেদন চেয়ে একটি গণবিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করবে এনটিআরসিএ। এরপর মেধা অনুযায়ী বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে মোধাক্রমে নিয়োগ দিতে সুপারিশ করবে এ প্রতিষ্ঠানটি।

তথ্যমতে, এনটিআরসিএ’র নিবন্ধন পরীক্ষায় পাস করার পরও নিয়োগ না পেয়ে বিভিন্ন সময়ে নিবন্ধিত প্রার্থীরা ৩৫টি মামলা করেন। তার ভিত্তিতে আদালত থেকে নিবন্ধিত প্রার্থীদের তালিকা প্রকাশের নির্দেশনা দেয়া হয়। সেই মোতাবেক প্রথম থেকে ১৩তম শিক্ষক নিবন্ধন পরীক্ষায় পাস করা প্রার্থীদের তালিকা প্রকাশ করে এনটিআরসিএ। এ তালিকা সারাদেশে মোট ৬ লাখ ৪ হাজার ৬৮৫ জনের নাম প্রকাশ করা হয়। এর মধ্যে অনেকেই বিভিন্ন বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত রয়েছেন।

এদিকে বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষক নিয়োগে কিছুটা পরিবর্তন আনতে গত ৫ সেপ্টেম্বর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের বেসরকারি বিদ্যালয় শাখায় একটি সুপারিশ পাঠানো হয়।

সুপারিশে বলা হয়, আইন অনুযায়ী বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে (স্কুল অ্যান্ড কলেজ, কলেজ, মাদরাসা) মহানগর অথবা জেলা সদরের পৌর এলাকায় অবস্থিত প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে অনুমোদিত শিক্ষক পদসংখ্যার অন্তত ৪০ শতাংশ পদে এবং অন্যান্য এলাকার ক্ষেত্রে ২০ শতাংশ পদে নারী শিক্ষক নিয়োগ করতে হবে। অথচ বাস্তবে একই উপজেলার মধ্যে ভিন্ন ভিন্ন হার থাকায় অনেক ক্ষেত্রে সঠিক হিসাব নির্ণয়ে কঠিন ও ভুল হয়ে যায়। তাই দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে একই হারে নারী কোটা চালুর প্রস্তাব করা হয়েছে। সেখানে ২০ থেকে ৩০ শতাংশ করা যেতে পারেও বলে উল্লেখ করা হয়।

এছাড়াও শরীরচর্চা শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে ছাত্রীদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পুরুষ এবং ছাত্রদের শিক্ষা প্রতিষ্ঠা নারী শিক্ষক নিয়োগ দেয়া হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ আপত্তি জানিয়ে আসছেন। তাই শরীরচর্চা বিষয়ে ছাত্রদের প্রতিষ্ঠানে পুরুষ এবং ছাত্রীদের প্রতিষ্ঠানে নারী শিক্ষক নিয়োগের সুপারিশ করেছে এনটিআরসিএ।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়) জাবেদ আহমেদ জাগো নিউজকে বলেন, এনটিআরসিএ থেকে পাঠানো সুপারিশকে গুরুত্ব দিয়ে নিয়োগের ক্ষেত্রে কিছুটা পরিবর্তন আনা হবে। দ্রুত এ বিষয়ে সভা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

তিনি বলেন, শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে ৩৫ বছর বয়সসীমা নির্ধারণ করা হয়েছে। এর বেশি হলে নিবন্ধিত ব্যক্তি নিয়োগের জন্য আবেদন করতে পারবেন না। জেলা ভিত্তিক নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিল করে জাতীয় ভাবে নিয়োগ কার্যক্রম পরিচালিত হবে। ফলে এক জেলার প্রার্থী অন্য জেলায় নিয়োগের আবেদন করতে পারবেন। এবং নিয়োগের ক্ষেত্রে সব কোটা বাতিল করে কেবল নারী শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে বিদ্যমান কোটা ৩০ শতাংশ বহাল রাখার প্রস্তাব করা হয়েছে।

পাশাপাশি শারীরচর্চা শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রেও পরিবর্তন আনা হতে পারে বলে জানিয়েছেন এ কর্মকর্তা।

About Somaj Seba

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *